মেহেদী সম্রাট এর গল্পাণুঃ

চোর…


Chor

চারদিক স্তব্ধ । সুনসান নিরবতা ।সবাই উন্মুখ হয়ে আছে বিচারের রায় শোনার জন্য। বিচার হচ্ছে চুরির। আরাম কেদারায় আয়েশি ভঙ্গিতে বসে আছে বিচারক সালামত মেম্বার । ঠিক তার পায়ের কাছেই মাটিতে বসে আছে মন্টু চোরা । গত রাতেই সে ধরা পড়েছে।
উত্তর পাড়ার মকবুল মহাজনের ঘর থেকে পুরো এক বস্তা চাল নিয়ে পালাচ্ছিল সে । পালাবার সময় মাথা ঘুরে পড়ে গেছে বলেই তাকে ধরা গেছে। একেবারে বস্তার নিচে চাপা পড়ে ছিলো । আর তখনি লোকজন দেখতে পেয়ে ধরলো তাকে । তারপর একচোট বেদম উত্তম মাধ্যম তো হলোই ।
মকবুল মহাজনের ভাষায়,–
“শালা একটা নিমক হারামের বাচ্চা । আমার জমি বরগা চষে খায়, আর আমার ঘরেই চুরি করে । প্রতি বছর মোট ফসলের পাঁচের এক অংশ দেই বলেই তো খেয়ে পরে বেঁচে আছে । তবুও বলে কিনা তাকে তিনের এক দিতে হবে…!! এমনকি এও বলে যে, সে চাষ করে বলে তার অর্ধেক ফসল প্রাপ্য..!! শালা কত বড় নিমক হারাম । আমি জমি না দিলে তো না খেতে পেয়ে মরতি । তবুও শোকর নাই । ফকিন্নির বাচ্চাদের এই এক সমস্যা । এদের মন ভরে না । শুধু আরো চাই, আরো চাই ।”
মন্টু চোরার কঠিন শাস্তি দাবি করে তাকে মেম্বারের হাতে তুলে দিয়েছে মহাজনের লোকজন । মন্টু কে দেখেই বোঝা যাচ্ছে যে কি পরিমান মারের ধকল তার উপর দিয়ে গেছে । একেবারে বিপর্যস্ত অবস্থা । মন্টু একবার ভাবে সবাইকে খুলে বলে যে, সে এবং তার পরিবার গত কয়েকদিন ধরেই উপোস । কাল বিকেলে তার ছোট মেয়েটা প্রচন্ড ক্ষুধা সইতে না পেরে অজ্ঞান হয়ে যায় । তবু সে একমুঠো চাল যোগাড় করতে পারেনি । এমনকি কেউ ধার পর্যন্ত দিতে চায়নি তাকে ।
 পুরো বছর কষ্ট করে সে মহাজনের জমি চষে । বছর শেষে সব ফসল মহাজনের গোলায় ওঠে । তাকে যেটুকু দেয়া হয়, তা তিন মাসেই শেষ । এরপরের দিনগুলো তার এবং তার পরিবারের জন্য হয়ে ওঠে দুর্বিষহ। তাই সে বাধ্য হয়েই চুরি করতে গিয়েছিলো মহাজনে বাড়িতে । করেও ছিল সে। কাকপক্ষীও টের পায়নি । কিন্তু কয়েকদিনের উপোসী দেহে সে ঐ বস্তার ভার বইতে পারেনি । আচমকা মাথা ঘুরে পড়ে গেছে।
এরপরের ঘটনা তো সবাই জানে । পরক্ষনেই মন্টু ভাবে এদের বলে কোন লাভ নেই । এরা কেউ তার কথা বিশ্বাস করবে না । কারণ এরা সবাই উদর পূর্তি করে এসেছে । তাই সালামত মেম্বারের পায়ের কাছে বসা মন্টু মিয়াও সকলের মত স্তব্ধ হয়ে অপেক্ষা করছে রায় শোনার জন্য । সে মনে মনে প্রত্যাশা করছে তাকে যেন মৃত্যুদণ্ডই দেয়া হয়..!
আপনার সোনামনির জন্য নাম খুজে পেতে সহয়তা করতে আমরা আছি আপনার পাশে। এখানে আমরা বিভিন্ন ক্যাটাহরীতে কয়েক হাজার নাম ও তার অর্থসহ সংগ্রহ করেছি। ভবিষ্যতে ভিজিটরদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে নিত্যনতুন কিছু ফিচার যুক্ত করা হবে। এছাড়া প্রতিটি নামের শুদ্ধ বাংলা ও ইংরেজি বানান সংযুক্ত করার কাজ চলছে। প্রতিটি নামের অর্থ, তাৎপর্য, ইতিহাস, বিক্ষাত ব্যক্তিত্ব, সোসাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় ইত্যাদি বিষয় ধারাবাহিক ভাবে যুক্ত করা হবে। মনে রাখবের ‘একটি সুন্দর নাম আপনার সন্তানের সারা জিবনের পরিচয়!!!’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *