গনেশের দেহে হাতির মাথা, তাহলে গণেশের মনুষ্য মুন্ডু কোথায়? জানেন কি?


উত্তরাখণ্ডের পিথোরাগঢ় থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরে ভুবনেশ্বর গ্রাম। এই গ্রামেই আছে পাতাল ভুবনেশ্বর মন্দির। কথিত আছে যে, গণেশের কেটে যাওয়া মনুষ্য মুণ্ড এই মন্দিরেই রাখা আছে। আর তা নাকি পাহারা দিচ্ছেন স্বয়ং শিব।

দেবভূমি বলে কথিত উত্তরাখণ্ডের পাতাল ভুবনেশ্বর মন্দিরটি আসলে ভূগর্ভে থাকা একাধিক গুহার সম্মিলনে তৈরি হওয়া একটি বৃহদকার গুহা-মন্দির।

একাধিক গুহা থাকলেও সবগুলি এক জায়গায় গিয়ে মিলিত হয়েছে। মানুষের বিশ্বাস, এই সমস্তগুহার মিলনস্থলে যে উঁচু পাথরের ঢিবিটি রয়েছে, সেটাই আসলে গণেশের মনুষ্য মুণ্ড।
৯০ ফুট গভীর এবং ১৬০ মিটার দীর্ঘ এই গুহা মন্দিরে আসা বহু ভক্তই মন্দিরের গর্ভগৃহে পোঁছোতে পারেন না। তবে, এই মন্দিরে মানুষ একবারই প্রবেশ করেন। দ্বিতীয়বার আর মন্দিরে ঢোকার চেষ্টা করেন না। কারণ তাঁদের বিশ্বাস এই মন্দিরে একবারই মাত্র প্রবেশ করতে হয়। ফলে, যাঁরা গণেশের মনুষ্য মুণ্ড রাখার মূল স্থলে না গিয়েই মাঝপথ থেকে ফিরে আসেন, তাঁদের আর এই মন্দিরে যাওয়া হয় না। ভক্তদের আবার বিশ্বাস মন্দিরের গুহার দেওয়াল ধরে চললেও পুণ্য অর্জন হয়। দূর হয় দুঃখ এবং দুর্দশা।

পাতাল ভুবনেশ্বর মন্দিরটি আসলে সরযূ, রামগঙ্গা এবং গুপ্ত গঙ্গার মিলনস্থলের কাছেই গড়ে উঠেছে। এমনকী স্থানীয় বিশ্বাসে দাবি গণেশের মাথা পাহারা দেওয়ার মধ্যে দিয়ে শিব আসলে ছেলের মাথা কেটে ফেলার প্রায়শ্চিত্ত করছেন।

আপনার সোনামনির জন্য নাম খুজে পেতে সহয়তা করতে আমরা আছি আপনার পাশে। এখানে আমরা বিভিন্ন ক্যাটাহরীতে কয়েক হাজার নাম ও তার অর্থসহ সংগ্রহ করেছি। ভবিষ্যতে ভিজিটরদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে নিত্যনতুন কিছু ফিচার যুক্ত করা হবে। এছাড়া প্রতিটি নামের শুদ্ধ বাংলা ও ইংরেজি বানান সংযুক্ত করার কাজ চলছে। প্রতিটি নামের অর্থ, তাৎপর্য, ইতিহাস, বিক্ষাত ব্যক্তিত্ব, সোসাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় ইত্যাদি বিষয় ধারাবাহিক ভাবে যুক্ত করা হবে। মনে রাখবের ‘একটি সুন্দর নাম আপনার সন্তানের সারা জিবনের পরিচয়!!!’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *